Wed. Nov 20th, 2019

Technology News BD

All Kind Of Technology News in BD You Can Find Here

ফোন দ্রুত চার্জ করার কিছু গুরুত্বপূর্ন টিপস!!!!

1 min read

একটা কথা চিন্তা করুন, হয়ত আপনার অফিসে জরুরী মিটিং আছে কিংবা কোথাও ঘুরতে বের হবেন। কিন্তু আপনি ঘুম থেকে উঠে দেখলেন আপনার ফোনের চার্জ নেই। ব্যাপারটা কেমন হবে বলেন? আবার আপনার রেডি হবার সময়টাতে কতটুকুই বা চার্জ হতে পারে ফোনটি! যাই হোক, কে কখন কিভাবে এমন পরিস্থিতিতে পড়ে যান বলা যায় না তাই না। সেক্ষেত্রে আপনার স্মার্টফোনটি কিভাবে দ্রুত চার্জ হবে তার কিছু টিপস জেনে রাখলে তো ক্ষতি নেই।

চলুন জেনে নিই ফোন দ্রুত চার্জ করার কার্যকর কিছু কৌশল!

১। চার্জিং এর মৌলিক তত্ত্ব

চার্জিং এর মৌলিক তত্ত্বটি হল আপনার ফোনটি কী পরিমাণ পাওয়ার নিয়ে চার্জ হবে সেটা ওয়াট এককে প্রকাশ করা হয়। ওয়াট হলো ভোল্টেজ এবং এম্পিয়ার এর গুণফল। এক্ষেত্রে ভোল্টেজকে আপনি পানির পাইপের প্রেশার হিসেবে এবং এম্পিয়ারকে আপনার পাইপ দিয়ে প্রবাহিত পানির সাথে তুলনা করতে পারেন। এই তিনটি ফ্যাক্টরই মূলত আপনার ফোনের চার্জিং কে নিয়ন্ত্রণ করে। আপনি আপনার ফোনের কিংবা চার্জারের চার্জ করার ক্ষমতা প্যাকেটে কিংবা ইন্টারনেট ঘেঁটে পেয়ে যাবেন। কোন একটি ফোন কিংবা চার্জারের চার্জ করার ক্ষমতা মানে ওয়াট যত বেশি হবে ফোনটি তত দ্রুত চার্জ নেবে। এক্ষেত্রে ফোন ও চার্জারের সমান তালে কাজ করতে হবে। উদাহরণ হিসাবে ধরুন আপনার ফোনটি ১৮ ওয়াট চার্জিং সাপোর্ট করে, কিন্তু আপনি ৫ ওয়াটের চার্জার দিয়ে সেটি চার্জ করলেন তাহলে দেখবেন সেটি ধীরগতিতে চার্জ হচ্ছে তখন এক্ষেত্রে যেসব ফোন ৫ ওয়াট চার্জিং সাপোর্ট করে সেগুলোতে আবার ১৮ ওয়াট চার্জার ব্যবহার করেও কোন লাভ নেই, বরং ক্ষতির সম্ভাবনা। আশা করি ব্যাপারটা বুঝতে পেরেছেন।

২। সঠিক চার্জারটি বাছাই করুন ।

সবচেয়ে দ্রুত চার্জ করতে আপনার ফোনের ম্যাক্সিমাম চার্জিং ক্যাপাসিটি অনুযায়ী চার্জার কিনুন। সাধারণত বেশি ওয়াটের চার্জারগুলোর দাম বেশি হয়। তাই অনেকসময় দেখা যায় নির্দিষ্ট মোবাইলটি বেশি ওয়াটের ফাস্ট চার্জিং সমর্থন করলেও মোবাইল কোম্পানি মোবাইলের সাথে খরচ বাঁচাতে কম ওয়াটের নরমাল চার্জার দিয়ে দেয়। সেক্ষেত্রে আপনি যদি আপনার ফোনের ম্যাক্সিমাম ক্যাপাসিটি না জেনে সেটি দিয়েই ফোন চার্জ করেন তাহলে কখনো দ্রুত চার্জ করতে পারবে না। তাই এখনই আপনার ফোনের মডেল অনুযায়ী ইন্টারনেট ঘেঁটে দেখে নিন সেটি কত ওয়াটের চার্জার সাপোর্ট করে, আর আপনি কত ওয়াটের চার্জার ব্যবহার করছেন তা একটু দেখে নিন।

৩।চার্জারের দাম বেশি দিয়ে হলেও ভালো চার্জার কিনুন ।

সাধারণত আপনি ভালো একটি ব্র্যান্ড এর চার্জার কিংবা ওইএম এর অরিজিনাল চার্জারের তুলনায় অনেক কম দামে বিভিন্ন অনলাইন শপে চাইনিজ বিভিন্ন ব্র্যান্ড এর চার্জার পাবেন। সেগুলোতে হয়তো ফাস্ট চার্জিং কিংবা এরকম কথা লেখা থাকবে কিন্তু বাস্তবে আপনি তার সঠিক আউটপুট পাচ্ছেন না। তাই আপনার উচিত একটু বেশি দাম দিয়ে হলেও ভালো একটি চার্জার কেনা। অনেকে ভাল চার্জারে যতটা গুরুত্ব দেয়, ভালো ক্যাবলের ক্ষেত্রে ততটা গুরুত্ব দেয় না। কিন্তু এক্ষেত্রে চার্জারের মতোই ক্যাবলটিও গুরুত্বপূর্ণ। আপনার চার্জার যতই ভালো হোক না কেন, ক্যাবল ভালো না হলে চাহিদানুজায়ী দ্রুত চার্জ করতে পারবেন না।

৪। ওয়াল সকেট ব্যবহার করুন ।

দ্রুত চার্জিং এর জন্য অবশ্যই চার্জার ওয়াল আউটলেটে লাগাবেন। ওয়াল আউটলেট এ আপনি ভালো কারেন্ট ফ্লো পাবেন। পাওয়ারব্যাঙ্ক বা কম্পিউটার থেকে চার্জ করতে গেলে আপনি ম্যাক্সিমাম স্পিড পাবেন না। এগুলো শুধু বিশেষ ক্ষেত্রেই ব্যবহার করা উচিত। একইভাবে ওয়্যারলেস চার্জার ব্যবহার করার চেয়ে ক্যাবল দিয়ে চার্জ করলেই দ্রুত চার্জ করতে পারবেন। তবে আজকাল অনেক ফাস্ট চার্জিং সমর্থিত ওয়্যারলেস চার্জার বাজারে এসেছে। একান্তই যদি ওয়াল আউটলেটে সরাসরি যুক্ত করতে না পারেন, মানে মাল্টিপ্লাগ ব্যবহার করতে হয়, তাহলে অবশ্যই ভালো মানের একটি মাল্টিপ্লাগ ব্যবহার করুন। নয়তো হিতে বিপরীত হতে পারে।

৫। ফোন বন্ধ করে চার্জ দিন ।

মোবাইল ফোন দ্রুত চার্জ করার ক্ষেত্রে এটা খুব কার্যকরী একটি পদ্ধতি। বন্ধ করে মোবাইল ফোন চার্জ দিলে এটি আপনার মোবাইলের রেডিও কানেক্টিভিটি ও অন্যান্য সার্ভিস বন্ধ রাখে বলে চার্জ ফুরোয় না। বরং পুরোটাই আপনার ব্যাটারিতে যুক্ত হয়। কোথাও বেরোবার আগে এই পদ্ধতিতে চার্জ দেয়া বেশ কাজের। তবে অনেক মোবাইলে এয়ারপ্লেন মোড বলে একটা অপশন আছে। চাইলে সেটাও ব্যবহার করতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Copyright © All rights reserved. | Newsphere by AF themes.